Main Menu

সভাপতির পদ হারানোর ভয়ে ২ শিক্ষককে মারপিট

beat

স্টাফ রিপোর্টার, মাগুরাবার্তা
মাগুরার শ্রীপুর উপজেলার সব্দালপুর ইউনিয়নের বাখেরা মকর্দ্দমখোলা নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দীপক কুমার মিত্র এবং সহকারি প্রধান শিক্ষক জিয়াউর রহমানকে পেটানোর অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় এক আ.লীগ নেতার বিরুদ্ধে। ওই স্কুলের একাধিক শিক্ষক ও  স্থানীয়রা জানান, একটানা ৮ বছর ধরে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি পদে রয়েছেন স্থানীয় আ.লীগ নেতা মুশফিকুর রহমান মিল্টন।  সোমবার  বিকাল চারটায় বিদ্যালয়ে একটি মিটিং হয় । ওই  মিটিংয়ে বিদ্যালয়ের কমিটিতে নতুন সভাপতি নির্বাচনের গুঞ্জন ওঠে।  সভা থেকে নতুন কমিটির সভাপতি পদে বীর মুক্তিযোদ্ধা লিয়াকত আলীর নাম প্রস্তাব উত্থাপিত হয়। এ ধরনের উড়ো খবরে ক্ষিপ্ত হয়ে  ইউনিয়ন আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক মুশফিকুর রহমান মিল্টন প্রধান শিক্ষক দীপক কুমার মিত্রকে জামার কলার চেপে ধরে জনসমক্ষে পেটাতে পেটাতে বিদ্যালয়ের মাঠে নিয়ে আসেন। সহকারি প্রধান শিক্ষক জিয়াউর রহমান ঠেকাতে গেলে তাকেও পেটাতে থাকেন একপর্যায়ে মুখের দাড়ির কিছু অংশ টেনে ছিড়ে ফেলেন। এসব বিষয় নিয়ে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দীপক কুমার মিত্র ও সহকারি প্রধান শিক্ষক জিয়াউর রহমানের মুঠো ফোনে একাধিকবার কল করা হলে বন্ধ পাওয়া গেছে। তবে সহকারি প্রধান শিক্ষক জিয়াউর রহমানের ছোট ভাই সোহেল ঘটনার সত্যতা শিকার করে বলেন,মারধরের ঘটনায় তিনি হতবাক, তদন্তের মাধ্যমে ন্যায় বিচারের দাবী করেছেন। অভিযুক্ত ইউনিয়ন আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক মুশফিকুর রহমান মিল্টন পেটানোর বিষয় অস্বীকার করে বলেন, কিছু গালি গালাজ করেছি। তবে মিমাংশা করে ফেলেছি।

এ ঘটনার বিষয়ে শ্রীপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মাহবুবুর রহমান বলেন, এখন পর্যন্ত কোন অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

 

মাগুরা/৩ মার্চ ২০২০






Comments are Closed