Main Menu

নেপথ্যে এক ইউপি চেয়ারম্যান

জাগলা বাজারের ব্যবসায়ীদের অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট

dormogot

বিশেষ প্রতিনিধি, মাগুরাবার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
চুরি ও ছিনতাইয়ের মিথ্যা অবিযোগে দায়ের করা মামলায় দুই ব্যবসায়ীকে আটকের প্রতিবাদে মাগুরা সদর উপজেলার জাগলা বাজারে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট পালন করছে ব্যবসায়ীরা। বুধবার সকাল থেকে বাজারের ২ শতাধিক ব্যবসায়ী এ ধর্মঘটের ডাক দেয়।

এ বিষয়ে জাগলা বাজারের ব্যবসায়ী মাহমুব হোসেনসহ অন্যরা জানান, গত ৩ নভেম্বর সবজি বিক্রির পাওনা টাকা চাওয়ার ঘটনা নিয়ে ওই বাজারের ব্যবসায়ী অরুপ সাহা ও নিরুপ সাহার সাথে মঘি ইউনিয়নের আঙ্গারদাহ গ্রামের গ্রাম্য মাতবর আতিয়ার রহমানের হাতাহাতি হয়। এই ঘটানায় আতিয়ার রহমান তার চাচাতো ভাই ইসমাইল হোসেনকে দিয়ে ওই দুই ব্যবসায়ীর নামে সদর থানায় চুরি ও ছিনতাইয়ের মিথ্যা অভিযোগে মামলা দেয়। এই মামলায় সদর থানা পুলিশ মঙ্গলবার রাতে ব্যবসায়ী অরুপ সাহা ও নিরুপ সাহাকে আটক করে। যা ব্যবসায়ীদের মাঝে ক্ষোভ সৃষ্টি করলে বাজারের ২ শতাধিক ব্যবসায়ির প্রত্যেকেই দোকান বন্ধ রেখে এই ধর্মঘটের ডাক দেয়।
এ প্রসঙ্গে স্থানীয় জগদল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম,জেলা আওয়ামীলীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক এড. অচ্যুতানন্দ শিকদার ,জাগলা বাজার কমিটির সাধারন সম্পাদক সদর থানা সেচ্ছাসেবকলীগের যুগ্ম আহবায়ক জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, ৩ নভেম্বরের ওই হাতাহাতির ঘটনা তারা তাৎক্ষনিকভাবে মিমাংসা করে দেয়া হয়েছিল। কিন্তু আতিয়ার রহমান সামাজিকভাবে পার্শবর্তী মঘি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল হাই সরদারের সামাজিক দল করায় হাই সরদার রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে তাদের নামে মিথ্যা অভিযোগে এই মামলা দায়ের করেছেন। তুচ্ছ ঘটনা সামাজিক দলাদলীর পর্যায় নিয়ে হাই সরদার এই মিথ্যা মামলা দায়েরের সুযোগ নিয়েছেন। পাশাপাশি কোন প্রকার তদন্ত না করে এধরনের মিথ্যা অভিযোগকে মামলা হিসেবে নিয়ে নিরিহ দুই ব্যবসায়ীকে আটকের বিষয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন তারা ।
এ প্রসঙ্গে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ কে এম আজমল হুদা জানান, বাজার কমিটির নের্তৃবৃন্দ ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে বিষয়টি মিমাংসার চেষ্টা চলছে। কথা প্রসঙ্গে তিনি এই মামলা দায়েরের ক্ষেত্রে জেলা আওয়ামীলীগ নেতা ও মঘি ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আব্দুল হাই সরদারের রাজনৈতিক প্রভাব বিস্তারের ইঙ্গিত দেন।
অভিযোগ অস্বীকার করে আব্দুল হাই সরদার বলেন,‘এলাকায় সম্মান ক্ষুন্ন করতে প্রতিপক্ষ একটি গ্রুপ আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে। আমি যতদুর জানি,নিজেদের অভ্যন্তরিন বিরোধের জের ধরে এ ঘটনা ঘটেছে।’






Comments are Closed