Main Menu

শালিখায় এক প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে গৃহবধুকে শ্লীলতাহানীর অভিযোগ

15-4

শালিখা প্রতিনিধি, মাগুরাবার্তা
মাগুরার শালিখা উপজেলা সদরের আড়পাড়া সরকারি আইডিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের  প্রধান শিক্ষক কে এম খাইরুল আলমের বিরুদ্ধে প্রতিবেশী এক গৃহবধুকে শ্লীলতাহানীর অভিযোগ উঠেছে। উপজেলা সদর আড়পাড়া সরকারি আইডিয়াল হাই স্কুল মাঠের পশ্চিম পার্শ্বে আব্দুল হাকিমের ভাড়াটিয়া বাসায় এ ঘটনা ঘটেছে। গত ১৮ অক্টোবর’১৯ এ ঘটনা ঘটে। পরে ওই প্রধান শিক্ষকের নানামুখি চাপ কাটিয়ে  পরিবারের সদস্যদের সাথে কথা বলে বিচার চেয়ে ১১ই নভেম্বর ওই গৃহবধু মাগুরা জেলা প্রশাসক বরাবরে লিখিত আবেদন করেন। ঘটনাটি জানাজানি হওয়ায় গতকাল শুক্রবার এলাকাবাসী এ বিষয়ে পোষ্টারিং করেন। তারা ওই প্রধান শিক্ষকের বিচার চেয়ে আড়পাড়া বাজারে পোষ্টারিং করেন।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়,  প্রধান শিক্ষক  একে এম খাইরুল আলম স্কুলের প্রাঙ্গনের ক্যান্টিনের মালিক মোঃ আব্দুল্লাহকে নিয়ে ১৮ অক্টোবর’১৯ তারিখ সকাল ৭টার দিকে অর্তকিত ওই গৃহবধুর বাসায় ঢুকে প্রথমে তার মুখের পর্দা খুলতে বলে। এরপর তাকে জড়িয়ে ধরে শরীরে হাত দেওয়ার চেষ্টা করে ব্যর্থ হলে জোর করে তাকে ঝাপটে ধরে। এ সময় মহিলাটির চিৎকারে বাড়ির মালিকসহ অন্যান্য ভাড়াটিয়ারা ছুটে আসে। এ সময় অভিযুক্ত ওই প্রধান শিক্ষক পালিয়ে যান। তিনি বলেন-বেশ কয়েক দিন আগে থেকেই ওই প্রধান শিক্ষক আমাকে উত্যক্ত করে আসতেছিলেন। ঘটনার ধারাবাহিকতায়  তিনি আব্দুল্লাহ নামের এক হুজুরকে বাসার বাইরে দাঁড় করে রেখে কাউকে কিছু না বলে আমার বাসার ভিতরে ঢুকে আমাকে দেওয়ালের সাথে ঝাপটে ধরে এবং আমার শরীরের বিভিন্ন স্থানে স্পর্স করে । এসময় আমি চিৎকার করলে বাড়িওয়ালাসহ আশপাশের লোকজন ছুটে আসলে সে আমাকে ছেড়ে পালিয়ে যায়। বিষয়টি নিয়ে আমি জেলা প্রশাসকের নিকট লিখিত অভিযোগ করেছি। ঘটনাটি চারিদিকে ছড়িয়ে পড়লে প্রধান শিক্ষক একএম খাইরুল আলম কতিপয় শিক্ষক নিয়ে এসে আমার হাতে পায়ে ধরছেন। তিনি সাংবাদিকদের কাছে কান্না জড়িত স্বরে অভিযোগ করে বলেন-  ঘটনাটি আমার স্বামী বিদেশ থেকে জানতে পেরে আমাকে তালাক দেওয়ার হুমকি দিয়েছে। এখন  আমি কি করবো ? কোথায় গেলে বিচার পাবো? এ ব্যাপারে ওই বাড়ির মালিক  আব্দুল হাকিম জানান-  বিষয়টি নিয়ে  ওই নারী জেলা প্রশাসক মহোদয়ের কাছে  অভিযোগ করেছেন। তিনি নিশ্চয় সঠিক বিচার করবেন।
অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক একে এম খাইরুল আলম  মুঠো ফোনে সাংবাদিকদের বলেন- আপনারা যা শুনেছেন তা সত্যি নয়। যা ঘটেছে আমি লোকজন নিয়ে মহিলার কাছে মাফ চেয়ে নিয়েছি। এদিকে আজ শনিবার সকালে দেখা গেছে শালিখা উপজেলা সদর আড়পাড়া বাজারের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ন এলাকায় ওই প্রধান শিক্ষকের বিচার চেয়ে কে বা কাহারা পোষ্টারিং করেছে।
এ ব্যাপারে মাগুরা জেলা প্রশাসক মোঃ আশরাফুল আলম বলেন- বিষয়টি নিয়ে ওই নারী লিখিত অভিযোগ করেছেন। আমি তদন্ত স্বাপেক্ষে ব্যবস্থা নিবো। এ বিষয়ে  গৃহবধুর আত্মিয় আড়পাড়া গ্রামের মোঃ বাবর আলী বিশ্বাস ও আমিরুল বিশ্বাস বলেন- ওই প্রধান শিক্ষক পূর্বেও ছাত্রীদের সাথে এমন ঘটনা ঘটিয়েছে। আমরা তার দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবি করছি।






Comments are Closed