Main Menu

মাছের ডিম পর্যন্ত ধরা পড়ে যায় ভয়ংকর এ আড়বাধে

মহম্মদপুরে অবৈধ আড়বাঁধ ধ্বংস করলো ভ্রাম্যমান আদালত

Magura Mohmmadpur Arbadh Oposharon Pic 1

বিশেষ প্রতিনিধি, মাগুরাবার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলার দেশী প্রজাতীর মাছ প্রজননের অন্যতম প্রধান খাল এমডি-২ এর ৬টি পয়েন্টে শনিবার অবৈধ আড়বাধ অপসারণ ও মাছ ধরার সরঞ্জাম ধ্বংস করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। মহম্মদপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাদিকুর রহমানের উপস্থিতিতে উপজেলা মৎস্য বিভাগ এ বাঁধ অপসারণ ও ধ্বংস করার কার্যক্রম পরিচালনা করেন। অপসারিত বাঁধগুলোর আনুমানিক মূল্য ২০ লাখ টাকা।

মহম্মদপুর উপজেলার ভারপ্রাপ্ত মৎস্য কর্মকর্তা মীর লিয়াকত আলী জানান- মহম্মদপুরে মধুমতি নদী থেকে বড়রিয়া, নিখড়হাটা হয়ে রাজাপুর রাহাতপুর পর্যন্ত পানি উন্নয়ন বোর্ডের এমডি-২ খালটি মাগুরা সদরের নবগঙ্গা নদীতে মিলেছে। ১২ কিলোমিটার লম্বা এ খালের সঙ্গে ওই এলাকার বিল ঝলমল, নালিয়ার বিল, টেটাদোহার বিল, পারুয়ার বিল, হাবুরিয়ার বিলসহ অন্তত ১৪টি বিলের সংযোগ রয়েছে। সম্প্রতি খালটির রড়রিয়া এলাকায় ৩টি, রাজাপুর এলাকায় ২টি ও নিখড়হাটা এলাকায় ১টি স্থানে অবৈধ আড়বাধ স্থাপন করে দেশী প্রজাতির ছোটবড় মাছসহ সকল ধরনের মাছ মেরে ফেলছিল অবৈধ দখলদাররা।Magura Mohmmadpur Arbadh Oposharon Pic 3 বাঁশের বানা, পলিথিন ও মশারি জাল দিয়ে তৈরী এসব বাধের কারণে মাছের ডিম পর্যন্ত ধরা পরে ও মারা যায়। অন্যদিকে এ আড়বাধের ফলে খালটির নব্যতাও বাধাপ্রাপ্ত হচ্ছিল। খবর পেয়ে শনিবার সকাল থেকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাদিকুর রহমানের নেতৃত্বে আমরা বাঁধ অপসারণ অভিযান পরিচালনা করি ও ৬টি বাঁধই ধ্বংস করে দেয়া হয়। এ বাঁধগুলোর আনুমানিক মূল্য ২০ লাখ টাকা।  তবে এ সময় কোন বাঁধের মালিককেই ঘটনাস্থলে পাওয়া যায়নি। মাছের বংশ বৃদ্ধিতে সহযোগিতা করা,  নদী ও খালের নব্যতা রক্ষায় প্রশাসনের এ ধরনের অভিযান অব্যহত থাকবে বলে তিনি জানান।

রূপক আইচ/ মাগুরা






Comments are Closed