Main Menu

গোয়ালবাথান স্কুলের সুবর্ণ জয়ন্তী ও কৃতি ছাত্র সংবর্ধনা

Goalbathan School Pic 001

বিশেষ প্রতিনিধি, মাগুরাবার্তা
মাগুরা সদরের গোয়ালবাথান মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে মঙ্গলবার স্কুলের ২ প্রাক্তন কৃতি ছাত্রকে সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে। প্রত্যন্ত গ্রামের এ স্কুলটি থেকে নিজ নিজ মেধা ও অধ্যবসায়ে বিদ্যালয়ের ছাত্র বিপুল কৃষ্ণ দাস ও মোঃ আবুল কাশেম যথাক্রমে বিভাগীয় বন কর্মকর্তা ও সহকারি মহা হিসাব রক্ষক হিসেবে সরকারের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করছেন। বিদ্যালয়ের বর্তমান ছাত্রছাত্রীদের মাঝে উৎসাহ উদ্দীপনা সৃষ্টির জন্য এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।
সকালে র‌্যালী শেষে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মাগুরা -২ আসনের সংসদ সদস্য ড. শ্রী বীরেন শিকদার এমপি। বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি তৈয়বুর রহমান খোকনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন সাবেক চেয়ারম্যান লিয়াকত মুন্সী, প্রধান শিক্ষক আলী হাসান,  মিসকাতুর রহমানসহ অন্যরা। অবুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বিদ্যালয়ের শিক্ষক রফিকুল ইসলাম।
প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বর্তমান শিক্ষা বান্ধব সরকারের শিক্ষা উন্নয়ন নানা কর্মসূচী সম্পর্কে আলোকপাত করে বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের সকল বাধা অতিক্রম করে লেখাপড়া চালিয়ে যাওয়ার জন্য আহবান জানান। তিনি অতিসত্তর এ বিদ্যালয়ে সরকারের পক্ষ থেকে একটি ৪ তলা বিল্ডিং তৈরী করে দেয়ার ঘোষণা দেন।
সংবর্ধিত অতিথি বিপুল কৃষ্ণ দাস বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন- বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র হিসেবে নিজের গর্ব তুলে ধরে জানান- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মত জায়গায় কৃতিত্বের স্বাক্ষর রাখার  পর চাকুরি জীবনেও পাবলিক সার্ভিস কমিশনের মাধ্যমে বিসিএস পরিক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার পেছনে যে প্রতিষ্ঠান সবচেয়ে বেশী ভূমিকা রেখেছে সেটি হলো কৈশরের এ স্কুল। এ স্কুলের দক্ষ ও সুযোগ্য শিক্ষকমন্ডলীর আন্তরিকতার ফলশ্রুতিতেই তিনি আজ এ পর্যন্ত আসতে পেরেছেন। তিনি জানান- ব্যক্তিগত জীবনে সরকারের একজন কর্মকর্তা হিসেবে আমেরিকার সরকারের আমন্ত্রনে হোয়াইট হাউস পর্যন্ত গিয়েছেন সম্পূর্ণ নিজ যোগ্যতায়। আর সে যোগ্যতার ভিত্তি রচিত হয়েছিল এ স্কুল থেকেই। তিনি ছাত্রছাত্রীদের কঠোর অনুশিলন ও শিক্ষকদের নির্দেশনামত চলে ভবিষ্যতে আরও বড় কিছু অর্জনের আহবান জানান।
অপর সম্বর্ধিত অতিথি আবুল কাশেম জানান- প্রত্যন্ত গ্রামে অবস্থিত হলেও গোয়ালবাথান মাধ্যমিক বিদ্যালয় শিক্ষার উন্নয়নে নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। এখানকার শিক্ষকদের নিরলস পরিশ্রমে মানসম্মত শিক্ষা বিস্তারে বিদ্যালয়টি ভূমিকা রাখছে। প্রাক্তন ছাত্র হিসেবে তিনি বিদ্যালয়ের বর্তমান ছাত্রদের ভালমন্দে পাশে থাকার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।
বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি তৈয়বুর রহমান খোকন জানান- বিদ্যালয় থেকে লেখাপড়া শেষে ব্যক্তিগত জীবনে সফল প্রাক্তন ছাত্রদের সংবর্ধনার মাধ্যমে বর্তমান ছাত্রদের সামনে আদর্শ হিসেবে তুলে ধরাই এ অনুষ্ঠান আয়োজনের প্রধান উদ্দেশ্য। তিনি আশা করেন নতুন ছাত্রছাত্রীরা এর মাধ্যমে উৎসাহিত হয়ে নিজ নিজ জীবনে এগিয়ে যেতে পারবে।   সন্ধ্যায় মনজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শেষ হয় এ অনুষ্ঠান।

রূপক আইচ/মাগুরা / ২৮ জানুয়ারী ২০২০






Comments are Closed